আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না ছেলে ধরা আর গলাকাটা নিয়ে গুজব কাউকে সন্দেহজনক মনে হলে পুলিশে খবর দিন

নড়াইল জেলা প্রতিনিধি:
আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না ছেলেধরা নিয়ে গুজব কাউকে সন্দেহজনক মনে হলে পুলিশে খবর দিন হুঁশিয়ারি করেছেন। নড়াইলের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার)। তিনি বলেন, আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না ছেলেধরা নিয়ে গুজব কাউকে সন্দেহজনক মনে হলে পুলিশে খবর দিন। আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায় জানান, দেশ জুরে একের পর এক গণপি’টুনিতে হ’ত্যাকা-ের ঘটনায় গুজব প্রতিরোধে পুলিশের সব ইউনিট প্রধানদের কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছে পুলিশ সদর দফতর। এতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেলে ধ’রা সংক্রান্ত পোস্ট বা মন্তব্য ছাড়ানোদের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়া ছাড়াও গুজব ঠেকাতে প্রতিটি এলাকায় মাইকিং, লিফলেট বিতরণ ও পোস্টারিং করার কথা বলা হয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন স্থানে ছেলে ধ’রা গুজব ছড়িয়ে গণপি’টুনিতে হ’ত্যার মাধ্যমে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির অপচেষ্টা চলছে। গণপি’টুনি দিয়ে হ’ত্যা ও গুজব ছড়িয়ে দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করা ফৌজদারি অপরাধ। গুজব ছড়িয়ে গণপি’টুনি দিয়ে হ’ত্যা বন্ধে সংশ্লিষ্ট ইউনিটকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হয়েছে। ছেলেধরা নিয়ে গুঁজবে কাউকে সন্দেহজনক মনে হলে পুলিশে খবর দিন, আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না ছেলেধরা নিয়ে গুজব কাউকে সন্দেহজনক মনে হলে পুলিশে খবর দিন, আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না নড়াইলের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার) বলেন পদ্মা সেতু নির্মানে মানুষের মাথা লাগবে বলে একটি গুজব ছড়ানো হচ্ছে।

বিভিন্ন স্থানে গুজব ছড়িয়ে গনপিটুনিতে হত্যার মাধ্যমে অস্হিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করার অপচেষ্টা চলছে। এটি শুধুমাত্র গুজব, এ নিয়ে বিভ্রান্ত হবেন না। গুজব ছরিয়ে এবং গনপিটুনি দিয়ে মৃত্যু ঘটানো ফৌজদারী অপরাধ। গনপিটুনির ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হচ্ছে, গুজবে বিভ্রান্ত হয়ে ছেলে ধরা সন্দেহে কাউকে গনপিটুনি দিয়ে আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না,কাউকে ছেলেধরা সন্দেহ হলে তাৎক্ষনিক পুলিশকে সংবাদ দিন এবং গনপিটুনি না দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দিন। আসুন আমরা সকলে মিলে সচেতন হই, গুজব ছড়ানো ও গুজবে কান দেওয়া থেকে বিরত থাকি। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শেখ ইমরান হোসেন, সহকারি পুলিশ সুপার (কালিয়া সার্কেল) রিপন বিশ্বাস, নড়াইল সদর থানা, নড়াইলের কালিয়া, নড়াইলের লোহাগড়া ও নড়াইলের নড়াগাতি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাবৃন্দ, নড়াইল গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক, কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক, ডিআইও-১ সহ নড়াইল পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ।

এসময় গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নড়াইল জেলা অনলাইন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি উজ্জ্বল রায়, ভোরের বাংলা পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক মোঃ হিমেল মোল্যাসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ। নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার) তাঁর বক্তব্যে বলেন, পুলিশের কাজে বাঁধা আসবেই। তাই বলে কাউকে থেমে থাকলে চলবে না। সকলকে সব বাঁধা-বিপত্তি অতিক্রম করে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যেতে হবে। এক্ষেত্রে কেউ যদি কোন সমস্যার সম্মুখীন হয় তবে তাকে সার্বিকভাবে সহায়তা করা হবে বলেও পুলিশ সুপার জানিয়েছেন। এছাড়াও নড়াইল পুলিশের কোন কর্মকর্তা বা কর্মচারীরা যে সমস্ত কল্যাণকর আবেদন করে থাকেন সেগুলিও খুব গুরুত্বের সাথে পর্যালোচনা করে তাৎক্ষণিকভাবে সমাধান করা হবে। মাদক, জঙ্গি ও সন্ত্রাসমুক্ত নড়াইল গড়ার প্রত্যয়ে সকলকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে পুলিশ সুপার তাঁর বক্তব্য সমাপ্ত করেন। ####






সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • ঝিকরগাছায় বেনাপোল এক্সপ্রেসের ধাক্কায় আহত ৬
  • চিরিরবন্দর উপজেলার আইন শৃংঙ্খলা উন্নয়ন পরিস্থিতি চেহারা পাল্টে গেছে
  • নানা অনিয়ম-দুর্নীতি আর সমস্যায় জর্জরিত শার্শা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স
  • বেনাপোলে শেখ রাসেলের ৫৫-তম জন্মদিন পালিত
  • বেনাপোলে ব্যবসায়ীর বাড়িতে দুর্বৃত্তদের বোমা হামলা
  • পিতার হেফাজত থেকেই অপহ্নত ৯ বছরের শিশুপুত্র উদ্ধার!
  • ঝিকরগাছায় জাতীয় ইঁদুর নিধন অভিযান উপলক্ষে আলোচনা অনুষ্ঠিত
  • আর,আর,এফ কতৃক সদস্য মৃত্যু দাবী পরিশোধ
  • Leave a Reply