পাইকগাছার ৮৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দুর্নীতি দমন কমিশনের অর্থ প্রদান

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : পাইকগাছার ৮৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দুর্নীতি দমন কমিশনের পক্ষ থেকে ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৭শ টাকা প্রদান করা হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সততা সংঘ পরিচালনার জন্য উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির মাধ্যমে এ অর্থ প্রদান করা হয়। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি এ্যাডঃ শেখ লোকমান হোসেনের সভাপতিত্বে বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জয়নাল আবদীন, দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক জি,এম,এম, আজহারুল ইসলাম, অধ্যক্ষ রবিউল ইসলাম, হাবিবুল্লাহ বাহার, হরেকৃষ্ণ দাশ, আজহার আলী, দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সদস্য ও সাংবাদিক মোঃ আব্দুল আজিজ, প্রধান শিক্ষক অজিত কুমার সরকার, খালেকুজ্জামান, রহিমা আক্তার শম্পা, নারায়ন চন্দ্র শিকারী ও শিক্ষক উজ্জ্বল বিশ্বাস।

পাইকগাছায় মাদক দিয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গিয়ে নিজেই ফেঁসে গেলেন

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : পাইকগাছায় প্রতিপক্ষ এক যুবককে মাদক দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে মাদক মামলার আসামী হয়ে নিজেই ফেঁসে গেছেন লুৎফর রহমান নামে এক ব্যক্তি। ওসি এমদাদুল হকের দুরদর্শিতার কারণে মিথ্যা মাদক মামলা থেকে রক্ষা পান একই এলাকার যুবক বাবু মোড়ল। থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার কপিলমুনি গ্রামের মৃত নিজাম গাজীর ছেলে লুৎফর রহমান (৬০) পূর্ব থেকে গাঁজা বিক্রি করে আসছিল। গাঁজা সহ একাধিকবার সে আটক হয়। এ কারণে প্রতিবেশী কবির মোড়লের ছেলে করিমন চালক বাবু মোড়লের (২২)-এর উপর তার সন্দেহ হয় এবং মাদক দিয়ে বাবুকে ফাঁসানোর পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা অনুযায়ী লুৎফর বুধবার বাবুর বসত বাড়ীর বারান্দার পাটখড়ির মধ্যে গাঁজা লুকিয়ে রেখে থানাপুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ অভিযান চালিয়ে বাবুকে আটক করে। পরে ওসির দুরদর্শিতার কারণে প্রমাণিত হয় বাবুকে ফাঁসাতেই তার বাড়ীতে মাদক রেখে থানাপুলিশকে খবর দেয় লুৎফর। পরবর্তীতে এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার লুৎফর রহমানের বিরুদ্ধে থানায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়। এর আগেও লুৎফরের বিরুদ্ধে থানায় দুটি মাদক মামলা রয়েছে এবং যাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করা হয় সেই বাবুর বিরুদ্ধে কোথাও কোন অভিযোগ নাই বলে ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান। #####

পাইকগাছার লতায় প্রকল্প অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : পাইকগাছার লতায় মুক্তি ফাউন্ডেশনের প্রকল্প অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সার্বিক সহযোগিতায় বৃহস্পতিবার সকালে লতা ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন মুক্তি ফাউন্ডেশনের পরিচালক গোবিন্দ ঘোষ। প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শিয়াবুদ্দীন ফিরোজ বুলু। বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লিপিকা ঢালী, লতা ইউপি চেয়ারম্যান চিত্তরঞ্জন মন্ডল, উপজেলা ভূমি কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সাংবাদিক আব্দুল আজিজ, প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুল বারী। প্রকল্প সমন্বয়কারী জোসেফ মন্ডলের পরিচালনায় কর্মশালায় বক্তব্য রাখেন, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা প্রকাশ চন্দ্র মন্ডল, ইউপি সদস্য কৃষ্ণ রায়, আলমগীর খলিফা, আজিজুল বিশ্বাস, বিশ্বজিত শীল, মীর ইব্রাহিম খলিল, সুষমা রায়, কাদম্বিনী মন্ডল, মিহির কান্তি সরকার, সুকলা মল্লিক, হিমাঙ্গিনী সরকার, আহলাদ মল্লিক, কালিপদ মন্ডল, শওকত হাওলাদার, প্রীতিলতা সরকার ও প্রকল্প কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ। কর্মশালায় প্রকল্পের নির্ধারিত কার্যক্রমের পাশাপাশি সুপেয় পানির সংকট নিরসনের বিষয়টি অন্তর্ভূক্ত করার জন্য দাবী জানান পরিষদের নেতৃবৃন্দ। ####

পাইকগাছায় স্পৃষ্টে এক ব্যক্তির মৃত্যু

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : পাইকগাছায় মালেক গাজী (৫৩) নামে এক ব্যক্তি বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছে। মৃত মালেক উপজেলার গড়ইখালী গ্রামের মৃত তফছের গাজীর ছেলে। গড়ইখালী ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম কেরু জানান, মালেক বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তার চাচার বাড়ীতে বিদ্যুতের কাজ করছিল। এ সময় আর্থিং রডের সাথে বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে মালেকের মৃত্যু হয়। পরে ডাক্তারের নিকট নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ###

পাইকগাছায় জায়গা জমির বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষদের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি: পাইকগাছায় জায়গা জমির বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষদের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ব্রজেন্দ্রনাথ মন্ডল নামে এক ব্যক্তি। বৃহস্পতিবার সকালে পাইকগাছা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে উপজেলার গড়ইখালী ইউনিয়নের কুমখালী গ্রামের মৃত নিলম্বর মন্ডলের ছেলে ব্রজেন্দ্রনাথ মন্ডল বলেন, বিবাদী অনিল কৃষ্ণ মন্ডল জনৈক কমর উদ্দীনের নিকট থেকে ০৪/০৬/১৯৯৫ তারিখে ১৬.৫ শতক জমি ক্রয় করেন। উক্ত জমির চৌহদ্দিতে আমার বাড়ীর কিছু অংশ ও চলাচলের পথ ছিল বিধায় আমি সাইড প্রিয়াংশন করি। যার পাইকগাছা সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের বিচারাধীন মিস কেস নং- ৩১/৯৫। পরবর্তীতে উক্ত কমর উদ্দীনের নিকট থেকে ১৫১১ নং দলিল মূলে ১০/০৬/১৯৯৬ তারিখে ০.২০ শতক জমি আমি ক্রয় করি। ০৪/০৩/১৯৯৯ তারিখে কোর্টের মাধ্যমে অনিল কৃষ্ণ মন্ডল ও আমার মধ্যে আপোষ মীমাংসা হয়। মীমাংসার শর্ত অনুযায়ী ২০ বছরের অধিক সময় যে যার স্থানে ভোগ দখলে থেকে শান্তিপূর্ণ ভাবে বসবাস করে আসছি। এদিকে, প্রতিপক্ষ অনীল কৃষ্ণ মন্ডলের ছেলে দেবাশীষ মন্ডল গংরা বিভিন্ন সময়ে আমার ভোগ দখলীয় সম্পত্তি জবর দখলের চেষ্টা এবং গাছ কেটে ও ফসলের ক্ষতি করে আসছে। এ সব ঘটনায় প্রতিপক্ষদের বিরুদ্ধে মামলা এবং স্থানীয় সংসদ সদস্য বরাবর অভিযোগ দাখিল করা হয়। প্রতিপক্ষরা থানার পুলিশের নির্দেশনা করে ওয়াপদার রাস্তার পূর্ব পাশে আমারই জমিতে মাটি ভরাট অব্যাহত রেখেছে। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এর প্রতিকার চান ব্রজেন্দ্র নাথ মন্ডল। ####






সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • বিদ্যুৎ উন্নয়ন বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ-১ এর ৫ ও ১৭ নং ওয়ার্ডের গ্রাহকদের ডিভিশন-২ তে স্থানান্তরের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ
  • আলমডাঙ্গায় স্কুল ছাত্রীদের সিগারেটের প্যাকেট ছুড়ে মারায় যুবুকে ভ্রাম্যমান আদালতে কারা দন্ড
  • শার্শায় প্রতিবন্ধি শিক্ষার্থীদের মাঝে স্কুল ড্রেস ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ
  • আলমডাঙ্গায় ভ্রাম্যমান আদালতে মাদকসেবন কারির কারাদন্ড
  • অস্ত্রসহ যুবলীগ নেতা খালেদ মাহমুদ গ্রেফতার
  • বেনাপোলে চোরাচালান প্রতিরোধে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত
  • নর্দান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ ও কর্টলার ইন্টারন্যাশন্যাল, রেসিন্ট ইন্টারন্যাশন্যাল কানাডা এর মধ্যে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর
  • এখন বিমানে উঠলে গর্বে বুক ভরে যায় : প্রধানমন্ত্রী
  • Leave a Reply