কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রবিরোধী ও আ’লীগ বিদ্বেষীর অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি :
সাতক্ষীরা জেলার তিনটি ইউনিয়ন পরিষদে উপনির্বাচন গত বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনে আশাশুনি উপজেলার কুল্ল্যা ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী আবুল বাসেত হারুন চৌধুরী এবং অপর দু’টি কালিগঞ্জ উপজেলার কুশুলিয়া ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী শেখ এবাদুল ইসলাম ও মৌতলা ইউনিয়নে কাজী রফিকুল ইসলাম বাটুল জয়লাভ করেন।

উক্ত ইউনিয়ন পরিষদের উপনির্বাচনে কালিগঞ্জ উপজেলার কুশুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদে আওয়ামীলীগ মনোনীত পরাজিত প্রার্থী ও জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য এ্যাডভোকেট শেখ মোজাহার হোসেন কান্টু কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরদার মোস্তফা শাহিনের উপর দেশের প্রচালিত আইন-কানন, শৃঙ্খলা তোয়াক্কা না করা এবং সেচ্ছাচারিতার অভিযোগ এনে বলেন- কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরদার মোস্তফা শাহিনের ব্যক্তিগত কর্মকান্ড ও আচরণের বোঝা যায় যে, সে একজন সরকার বিরোধী এবং রাষ্ট্রবিরোধী। খালেদা জিয়ার পুত্র তারেক রহমানের থেকেও সে রাষ্ট্র তথা আওয়ামীলীগ বিদ্বেষী।

তিনি আরোও বলেন, সরদার মোস্তফা শাহিন বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অনিয়ম করে আওয়ামীলীগের মনোনীত পরাজিত প্রার্থীর জামানত বাতিল করিয়েছে। আবার কালিগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদের উপনির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থীকে পরাজিত করার লক্ষে সে সমস্ত কলা-কৌশল অবলম্বন করে এখানেও আওয়ামীলীগকে পরাজিত করেছে। সে উদ্দেশ্য প্রণোদিত নির্বাচন করার লক্ষে নির্বাচন কমিশনে আবেদন করে সকাল ৮ টায় ভোট গ্রহণের স্থলে সকাল ৯ টায় ভোট গ্রহণের ব্যবস্থা করেছে।

এর পরেও সে তার সমমনা/মনোনীত প্রার্থীকে অবৈধ সুযোগ দিয়ে জয়ী করার লক্ষে কোন কোন ভোট কেন্দ্রে রাতেই ব্যালট পেপার পাঠিয়েছে আবার কোন কোন কেন্দ্রে দিনের বেলায় অর্থাৎ সকাল ৮ টার পরে ব্যালট পেপার পাঠিয়েছে। যেটা একই সঙ্গে একইভাবে হওয়া উচিৎ সেখানে সে অনিয়মভাবে বিভিন্নভাবে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কেন্দ্রে নির্বাচনী সরাঞ্জমি পাঠিয়ে দিয়ে তার এই দ্বৈত নীতি, দ্বৈত এই ব্যবস্থাই প্রমাণ করে সে একজন অসৎ।

এছাড়াও সরদার মোস্তফা শাহিন আওয়ামীলীগের নির্বাচনী প্রচারণা অফিস বন্ধ করাসহ নির্বাচনী এলাকার প্রতিটা ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের বাড়িতে বিজিবি দিয়ে তল্লাশি করেছে। সে প্রকাশ্যে চ্যালেঞ্জ দিয়ে অকাট্য ভাষা ব্যবহার করে বলে “যান আমার বিরুদ্ধে আপনারা যেখানে যা জানাবেন জানান, আমাকে কেউ কিছুই করতে পারবেনা”। এবং হুমকিসহ আওয়ামীলীগের নাম উল্লেখ্য করে বাজে উক্তি এবং নেতাকর্মীদের অকট্য ভাষায় গালিগালাজ করার অভিযোগও করেছে পরাজিত আওয়ামীলীগ প্রার্থী এ্যাডভোকেট শেখ মোজাহার হোসেন কান্টু। ###






সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • কালিগঞ্জের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেনের ১ম মৃত্যু বার্ষিকীতে র‍্যালী ও স্মরণসভা
  • কালিগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সম্পাদক নাঈমের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় বিভিন্ন মহলের নিন্দা
  • কালিগঞ্জ অনলাইন রিপোর্টার্স ক্লাবের ২য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত
  • নলতা শরীফে বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ বহুমুখী সমবায় সমিতির সভা অনুষ্ঠিত
  • কালিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক শিমুলের শাশুড়ী সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত
  • কালিগঞ্জে সাবেক চেয়ারম্যান ও প্রবীণ আওয়ামীলীগের নেতা ডাঃ শেখ মোসলেম আলী না ফেরার দেশে চলে গেলেন
  • কালিগঞ্জের চৌমুহনী মাদ্রাসার সহকারী মৌলভী মাওঃ আব্দুল জব্বারের বিদায়ী সম্বর্ধনা অনুষ্ঠিত
  • কালিগঞ্জ উপজলায় নবযাত্রা প্রকল্প’র সহযোগিতায় আন্তর্জাতিক যুব দিবস-২০১৯ অনুষ্ঠিত
  • Leave a Reply