সরকারি ভাতা পাওয়ায় বৃদ্ধদেরা ও পরিবারে সম্মানিত হচ্ছেন -মোস্তাফিজুর রহমান এমপি

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এমপি বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রচেষ্টায় সরকারিভাবে বয়স্ক, স্বামী পরিত্যক্তা, বিধাব, প্রতিবন্ধীসহ বিভিন্ন প্রকার ভাতা চালু হওয়ায় ভাতাপ্রাপ্ত বয়স্ক, বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা নারীসহ প্রতিবন্ধীরা নিজ নিজ পরিবারে সম্মানিত হচ্ছেন। সরকার প্রতিটি নাগরিককে নাগরিক সুবিধা প্রদানসহ সম্মানিত করার জন্য নানামূখী পদক্ষেপ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমান সরকার জনগণের কল্যাণমূখী সরকার। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেষ হাসিনার সরকার থাকলে দেশের উন্নয়ন হয়, উন্নতি হয়, বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ বয়স্ক, বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা নারী, প্রতিবন্ধীরা ভাতা পান। আর বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার থাকলে দেশে নেই আর নেই বলেই দেশের হাহাকার পড়ে যায়। প্রতি বছরের শুরুতে ১ জানুয়ারি দেশের প্রথম শ্রেণি থেকে দশম শ্রেণির প্রতিটি শিক্ষার্থী বিনামূল্যে বই হাতে পেয়ে যায়। সরকার দেশের প্রতিটি শিশুকে এক দক্ষ ও উপযুক্ত শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে কাজ করছে। শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়ন দেখে উন্নত দেশের রাষ্ট্রনায়করা অবাক হয়ে গেছেন। অনেকেই বাংলাদেশে আসছেন উন্নয়ন দেখতে এবং কীভাবে সম্ভব হচ্ছে জানতে।

গতকাল শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজলার বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে অর্থ বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এমপি উপরোক্ত কথা বলেন।

উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের যৌথ উদ্দ্যোগে আয়োজিত অর্থ বিতরণী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুস সালাম চৌধুরী। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোসাম্মৎ হাসিনা ভূঁইয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আতাউর রহমান মিল্টন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. হায়দার আলী শাহ ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এটিএম হামীম আশরাফ। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ফখরুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান উপাধ্যক্ষ শাহ মো. আব্দুল কুদ্দুস, ইউপি চেয়ারম্যান মো. মানিক রতন, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. আখতারুজ্জামান প্রমুখ।

শেষে উপজেলার পৌরসভাসহ সাতটি ইউনিয়নের ৫৯৫ জন বয়স্ক-বয়স্কাকে জনপ্রতি ৫০০ টাকা, ২৪২ জন বিধবা নারীকে জন প্রতি ৫০০ টাকা ও ১৯১ জন প্রতিবন্ধীকে জনপ্রতি ৭০০ টাকা করে মোট ৫ হাজার ৫২ হাজার ২০০ টাকার অনুদান প্রদান করা হয়। #####






সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • দীপ্ত জীবন উপাখ্যানের একটি বৃহৎ আলেখ্য নজরুল ইসলাম তোফা
  • ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের স্বাস্থ্য সেক্টরের উদ্যোগে কারাগারে বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উদযাপিত
  • মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মতবিনিময়কালে জেলা প্রশাসক মুজিব বর্ষ পালনের মাধ্যমে পৃথিবীর ইতিহাসে শ্রেষ্ঠতম জন্মদিন পালিত হবে বঙ্গবন্ধুর
  • কলারোয়ায় রক্তের গ্রুপিং ও স্বেচ্ছায় রক্তদান কার্যক্রম
  • কয়রায় অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগে বাঁধা দেওয়ায় মাদ্রাসা শিক্ষককে হাতুড়ী পেটা
  • নওগাঁয় মদ সহ একজনকে আটক করেছে পুলিশ
  • বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে গোপালগঞ্জ বশেমুরবিপ্রবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন; দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী
  • আর,আর,এফ কতৃক স্বামী মৃত্যু দাবী পরিশোধ
  • Leave a Reply