আশাশুনি থানার ওসি’র সাথে প্রেস ক্লাব সদস্যদের মতবিনিময়

আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : আশাশুনি থানায় নবাগত পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মোঃ আবদুস সালামের সাথে আশাশুনি প্রেস ক্লাবের নেতৃবৃন্দ ও সদস্যদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার বেলা ১২.৩০ টায় এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

পুলিশ পরিদর্শকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বক্তব্যকালে ওসি আবদুস সালাম বলেন, আইন শৃংখলা রক্ষায় সাংবাদিকদের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আইন শৃংখলা রক্ষায় পুলিশের সহযোগিতায় সাংবাদিকদের এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, জুয়া ও মাদক নির্মূলে পুলিশ ১০০% দায়িত্বশীলতার পরিচয় দেবে। জুয়াড়ী ও মাদকসেবী যত শক্তিশালী ও তদবীর নিয়ে আসুক কোন সহানুভুতি পাবে না। আশাশুনিকে মাদক ও জুয়ামুক্ত উপজেলা হিসাবে দেখতে চাই। ইতিমধ্যে জুয়াড়ী ও মাদকসেবী-ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার ও তাদের আস্তানা গুড়িয়ে দিয়ে তাদের অবস্থান নড়বড়ে করে ফেলান হচ্ছে। আমি যতদিন এখানে আছি তাদের কোন প্রশ্রয় দেওয়া হবেনা। এছাড়া বাল্য বিবাহ, জঙ্গীবাদসহ সকল প্রকার অপরাধীদের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান জোরদার থাকবে। এসময় প্রেস ক্লাবের উপদেষ্টা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আঃ হান্নান, অধ্যাপক সুবোধ চক্রবর্তী, আশাশুনি প্রেসক্লাব সভাপতি এস এম আহসান হাবিব, প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জি এম মুজিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক জি এম আল-ফারুক, সহ-সভাপতি আলী নেওয়াজ, সাংগঠনিক সম্পাদক এস কে হাসান, সমীর রায়, গোলাম মোস্তফা, বাহবুল হাসনাইন, শাহাদাৎ হোসেন টিটল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। ####

আশাশুনির বিভিন্ন নদীতে রেণু নিধন বন্ধে অভিযান

আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : : আশাশুনি উপজেলার বেতনা ও মরিচ্চাপ নদীতে অবৈধ চিংড়ী রেণু ধরার ও রেণু নিধন বন্দে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। এসময় ৩০টি মাছ ধরা জাল বিনষ্ট ও ২ লক্ষাধিক রেণু পোনা নদীতে অবমুক্ত করা হয়েছে। সোমবার সকালে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। সিনিঃ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সেলিম সুলতানের নেতৃত্বে সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে নদীতে অভিযান চালান হয়। এসময় নদীতে নেট জাল দিয়ে গলদা রেণু ধরার নামে হাজার হাজার রেণু পোনা ধ্বংসের সাথে জড়িতরা দ্রুত পানিতে নেমে ছুটে পালাতে শুরু করে। এরপরও ৩০টি জাল আটক করে প্রকাশ্যে বিনষ্ট করা হয়। একই সাথে তাদের কাছ থেকে অনুমান ২ লক্ষাাধিক রেণু পোনা উদ্ধার করে নদীতে ছেড়ে দেওয়া হয়। আগামীতে যাতে এভাবে রেণুপোনা ধরা না হয় সেব্যাপারে সতর্ক করা হয়। অমান্য করা হলে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে জানিয়ে দেওয়া হয়। সহকারী ম]ৎস্য কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমানও এসময় উপস্থিত ছিলেন। ####

কাপসন্ডায় মৃত শাহাজদ্দির দোয়া মাহফিল

আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : আশাশুনি উপজেলার খাজরা ইউনিয়নের কাপসন্ডায় সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন বুলুর ভাই মরহুম এস এম শাহাজুদ্দিনের রূহের মাগফিরাত কামনা করে দোওয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার দুপুরে মরহুমের কাপসন্ডাস্থ বাস ভবনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে মিলাদ ও দোয়া পরিচালনা করেন, মাওঃ আঃ কাদের, মাওঃ মুনছুর আহমেদ, মাওঃ আঃ রশিদ, মাওঃ শরিফুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে খাজরা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ¦ শাহ নেওয়াজ ডালিম, রবিউল ইসলাম, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান জি এম মতিয়ার রহমান, সাবেক মেম্বার এমদাদুল হক (টুকু), বিএনপি নেতা জুলফিকর আলি জুলি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। #####

কুল্যায় চেয়ারম্যান প্রার্থী পুতুলের গণসংযোগ শুরু

আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : আশাশুনি উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে উপ নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থী জাহিদা ইসলাম পুতুল গণ সংযোগ করেছেন। রোববার বিকালে তিনি গণসংযোগ করেন। সদ্য প্রয়াত সফল চেয়ারম্যান এস এম রফিকুল ইসলামের সহ-ধর্মিনী জাহিদা ইসলাম পুতুল আসন্ন উপ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। নির্বাচনকে সামনে রেখে তিনি পুরোহিতপুর, দাদপুর, মহাজনপুর,, মহিষাডাঙ্গা ও আগরদাড়ি এলাকায় গণ সংযোগ করেন। এসময় তিনি প্রয়াত চেয়ারম্যানের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে এবং কুল্যা ইউনিয়নের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে তাকে ভোট দিয়ে কাজ করার সুযোগ দানের জন্য আহবান জানান। এসময় ইউপি সদস্য আলমগীর হোসেন আঙ্গুর, নজরুল ইসলাম, আঃ রশিদ, মহিলা মেম্বার শামিমা সুলতানা কুইন প্রমুখ তার সাথে ছিলেন। ###

আশাশুনির বেতনা নদী খনন জরুরী ॥ পলি জমে নদীর তলদেশ জাগ্রত

আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : আশাশুনি উপজেলার কুল্যা, বুধহাটা, কাদাকাটি ও সাতক্ষীরা সদর উপজেলাসহ ধুলিহর ইউনিয়নের বুকচিরে বয়ে যাওয়া বেতনা নদীটি খনন করা অতি জরুরী হয়ে পড়েছে। নদীটির সাতক্ষীরা সদর উপজেলার মধ্যে জোয়ার ভাটা নেই বললেই চলে। সদরের ধুলিহর ইউনিয়নের মাটিয়াডাঙ্গা, মাছখোলা এবং আশাশুনির কুল্যা-গুনাকরকাটি ব্রীজ সংলগ্ন, বুধহাটা বাজার সংলগ্ন, নওয়াপাড়া ও মহেশ্বরকাটি এলাকার বেতনা নদীতে পলি জমতে জমতে ভাটার সময় নদীর তলদেশ জাগ্রত হয়ে যায়। ফলে নদীতে ভাটার সময় সাধারণ মানুষ পায়ে হেটে পারাপার হয়ে থাকে। নদীটি যশোরের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল থেকে উৎপন্ন হয়ে শার্শা উপজেলার নাভারনের কাছ দিয়ে প্রবাহিত হয়ে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার মধ্য দিয়ে এঁকে বেঁকে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বিনেরপোতা থেকে আশাশুনি উপজেলার কয়েকটি গ্রামের বুক চিরে খোলপেটুয়া নদীতে গিয়ে মিশেছে। (বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড বা “পাউবো” কর্তৃক বেতনা নদীটির পরিচিতি নম্বর নং ৬৪। আবহমানকাল থেকে বেতনা নদীটির দৈর্ঘ্য ১৯১ কিলোমিটার (১১৯ মাইল), গড় প্রস্থ ৫৫ মিটার। কালের বিবর্তনে বেতনা নদী আজ হারিয়ে নদীটির চার ভাগের তিনভাগই ভরাট হয়ে নদীর তলদেশ উঁচু হয়ে গেছে। এছাড়া সাতক্ষীরা সদরের বিভিন্ন এলাকায় নদীটি একেবারেই শুকিয়ে মরা খালে পরিণত হয়েছে এবং আশাশুনির অনেক স্থানে ভাটার সময় নদী হেটেই পার হয় সাধারণ মানুষ। বেতনা নদী তার নাব্যতা হারানোর ফলে লোকালয়ের মৎস্য ঘের, খাল, বিলের চেয়ে নদীর তলদেশ ভরাট হয়ে উচু হওয়ার কারণে বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টির পানি নিষ্কাশন হতে পারেনা। উপরন্ত বর্ষা মৌসুমে সকল খালের স্লুইচ গেটের পাট বন্ধ করে রাখতে হয়, যাতে নদীর পানি লোকালয়ে প্রবেশ করতে না পারে। আশাশুনি উপজেলার খোলপেটুয়া নদীর সাথে সাথে বেতনা নদী বালু মহল ঘোষনা করা হলে অথবা নদীটি যথাযথ কর্তৃপক্ষ খননের উদ্যোগ গ্রহণ করলে অনেককাংশে নাব্যতা ফিরিয়ে আসতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে। না হলে অচিরেই বাংলার মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাবে এক সময়কার প্রমত্তা বেতনা নদী। বিষয়টি আমলে নিয়ে নদী খননের কাজ শুরু করার জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের প্রতি জোর আহবান জানিয়েছেন সচেতন মহল।###

গ্রাহকদের সাথে পল্লী বিদ্যুৎ এজিএমের মতবিনিময়

আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আশাশুনি সাব জোনাল অফিসের এজিএম নতুন গ্রাহকদের সাথে মত বিনিময় সভা করেছেন। রবিবার বেলা ১১টায় আশাশুনি পল্লী বিদ্যুৎ সাব জোনাল অফিসে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

“দালাল ও ভোগান্তি ছাড়াই বিদ্যুৎ সংযোগ” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে অনুষ্ঠিত সভায় পল্লী বিদ্যুতের এজিএম মধুসুদন রায় সাধারণ গ্রাহকদের উদ্দেশ্যে বলেন, পল্লী বিদ্যুতের নতুন সংযোগ স্থাপন ও যে কোন সমস্যায় আপনারা সরাসরি আমার সাথে কথা বলুন। কোন প্রকার দালালের খপ্পরে পড়বেন না। খুটি স্থাপন থেকে শুরু করে বাড়ীতে বিদ্যুৎ সংযোগ পেতে রিসিট ছাড়া কাউকে কোন টাকা দিবেন না। মতবিনিময় শেষে আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়নের কোলা গ্রামের নতুন সংযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে শতাধিক গ্রাহক বিনা ভোগান্তিতে মিটার আবেদন জমা দেন। এসময় সাংবাদিক শেখ বাদশা, এস এম শাহীন আলম, কোলা ইউপি সদস্য কামরুজ্জামানসহ প্রায় শতাধিক গ্রাহক উপস্থিত ছিলেন। ###






সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • বড়দলে গরুতে ফসল খাওয়া নিয়ে মারপিট ॥ বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ আহত- ৩
  • দরগাহপুরে ঘর ভাংচুর ও যাতয়াতের পথ বন্ধ
  • মাদক মুক্ত বাংলাদেশ বিনির্মান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অঙ্গিকার …. এমপি রুহুল হক
  • আশাশুনিতে পুলিশী অভিযানে ৫ আসামী গ্রেফতার
  • বুধহাটায় আছাফুর জিম সেন্টার পরিদর্শনে অধ্যাপক রুহুল হক এমপি
  • আশাশুনি সরকারী কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের মিছিল ও স্মারক লিপি পেশ
  • আশাশুনিতে ওয়ার্ল্ড ভিশনের উন্নয়ন কর্ম পরিকল্পনা প্রণয়ন সভা
  • সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন আশাশুনিতে পাওনা টাকা চাওয়ায় ইটভাটা শ্রমিককে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ
  • Leave a Reply