সংগীতশিল্পী খালিদ হোসেন আর নেই

বরেণ্য নজরুলসংগীত শিল্পী খালিদ হোসেন আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

বুধবার রাত ১০টা ২২ মিনিটে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর।

খালিদ হোসেনের ছেলে আসিফ ও ছাত্র পরদেশী সিদ্দিক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পরদেশী সিদ্দিক জানান, খালিদ হোসেন দীর্ঘদিন ধরে হৃদরোগসহ বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন।

তার দাফনের ব্যাপারে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বাবা কয়েকদিন আগে বলে গেছেন- মৃত্যুর পর যেন তাকে কুষ্টিয়ার কোর্টপাড়ায় মায়ের পাশে সমাহিত করা হয়।’

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কৃষ্ণনগরে ১৯৩৫ সালের ৪ ডিসেম্বর খালিদ হোসেনের জন্ম। দেশ বিভাগের পর বাবা-মায়ের সঙ্গে তিনি চলে আসেন কুষ্টিয়ার কোর্টপাড়ায়। ১৯৬৪ সাল থেকে তিনি স্থায়ীভাবে ঢাকায় বসবাস করছেন। দীর্ঘদিন ধরে নজরুলসংগীতের শিক্ষকতার সঙ্গে জড়িত আছেন। দেশ-বিদেশে তার অসংখ্য ছাত্রছাত্রী রয়েছে।

খালিদ হোসেনের গাওয়া নজরুলসংগীতের ছয়টি অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে। আরো আছে একটি আধুনিক গানের অ্যালবাম ও ইসলামি গানের ১২টি অ্যালবাম। তিনি ২০০০ সালে একুশে পদক পেয়েছেন। এ ছাড়া পেয়েছেন নজরুল একাডেমি পদক, শিল্পকলা একাডেমি পদক, কলকাতা থেকে চুরুলিয়া পদকসহ অসংখ্য সম্মাননা।

খালিদ হোসেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় এবং দেশের সব মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড ও বাংলাদেশ টেক্সট বুক বোর্ডে সংগীতের প্রশিক্ষক ও নিরীক্ষকের দায়িত্ব পালন করেছেন। নজরুল ইনস্টিটিউটে নজরুলসংগীতের আদি সুরভিত্তিক নজরুল স্বরলিপি প্রমাণীকরণ পরিষদের সদস্য ছিলেন তিনি।



« (পূর্ববর্তী সংবাদ ...)



সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • এবার অভিনয়ে পরিচালক শিমুল সরকার
  • বাংলা‌দেশ ও ভার‌তের সম্পর্ক বন্ধু‌ত্বের ভি‌ত্তিতেই বহমান- এসএম মোস্তফা কামাল
  • পরিকল্পনা মন্ত্রীর সাথে জি.এম সৈকতের স্বাক্ষাত
  • চার শিল্পীকে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান,শিল্পী ঐক্যজোটের কৃতজ্ঞতা
  • মীরাক্কেল তারকা মীরের আত্মহত্যার চেষ্টা!
  • অক্ষয়ের স্ত্রীর চরিত্রে বিশ্বসুন্দরী মানুষী
  • আবারও মেয়ের মা হলেন সালমা
  • শ্যামনগরে এক অসহায় বৃদ্ধার দায়িত্ব নিলেন জি.এম সৈকত
  • Leave a Reply