কি করবেন হজমে সমস্যা হলে

খাবার ঠিকভাবে হজম না হলে তার প্রভাব পড়ে আমাদের শরীরে। নানা কারণেই হতে পারে হজমের সমস্যা। অনিয়মিত খাওয়াদাওয়া এর অন্যতম কারণ। বদহজম, অ্যাসিডিটি, পেটে অতিরিক্ত গ্যাস, ঢেকুর ও বাতাস নির্গমনের মতো বিরক্তিকর সমস্যা থেকে রেহাই পেতে মেনে চলুন কিছু করণীয়:-

কোষ্ঠকাঠিন্য হলে পেট ফাঁপে। তাই কোষ্ঠকাঠিন্য এড়াতে আঁশযুক্ত খাবার খান, পর্যাপ্ত পানি পান করুন। খাওয়ার সময় ও মাঝখানে বেশি পানি পান করলে পাকস্থলীর অ্যাসিড দুর্বল হয়ে পড়ে এবং ভালো করে খাবার ভাঙতে পারে না। তাই খাওয়ার অন্তত ৩০ মিনিট আগে এক গ্লাস পানি পান করুন। খাওয়ার সময় বেশি পানি নয়। খাওয়া শেষে আবার একটু সময় পর পানি পান করবেন।

খাওয়ার সময় তাড়াহুড়া করবেন না। সময় নিয়ে, ধীরে-সুস্থে ভালো করে চিবিয়ে খাওয়া শেষ করবেন। তাড়াহুড়া করে খেতে গিয়ে খাবার ঠিকমতো হজম হয় না। তা ছাড়া পেটে খানিকটা বাতাসও ঢুকে যায়।

একেকজনের একেক ধরনের খাবার হজম করতে সমস্যা হয়। যাদের ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স আছে, তারা দুধ ও দুধের তৈরি খাবার খেতে পারেন না। অনেকের মিষ্টিজাতীয় দ্রব্যে সমস্যা হয়। কারও সমস্যা হয় রুটি, যব বা ডালজাতীয় খাবারে। কার কোনটাতে সমস্যা, সেটা তিনিই ভালো ধরতে পারবেন। তাই বদহজমের রোগীর দুধ নিষেধ বা মিষ্টি নিষেধ-এ জাতীয় কথা ঢালাওভাবে বলা যায় না।
পেটে গ্যাস সমস্যা তৈরি করতে পারে কৃত্রিম চিনি, অতিরিক্ত তেল-চর্বিযুক্ত খাবারও। তাই এগুলো খেতে হবে হিসাব করে।

ধূমপান, চুইংগাম চিবোনো ও স্ট্র দিয়ে জুসজাতীয় কিছু খেলে পেটে গ্যাস হওয়ার প্রবণতা বাড়ে। তাই এ ধরনের অভ্যাস বর্জন করুন।






সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • ছড়িয়ে পড়তে পারে চীনের নতুন ভাইরাস
  • ডায়াবেটিস হার্ট ফেইলিওর ঝুঁকি বাড়ায়
  • শীতে গুড় খেলে যেসব রোগ থেকে মুক্তি মিলবে
  • শিশুর কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধের ঘরোয়া উপায়
  • মায়ের গর্ভে শিশু প্রতিবন্ধী হওয়ার কারণ ও করণীয়
  • মাড়ি থেকে রক্ত পড়া বন্ধ করুন এই উপায়ে
  • হার্ট ব্লক রুখবে ‘ম্যাজিক পানীয়’
  • ছয় মাসেই কিডনির পাথর গলবে এই পাতায়!
  • Leave a Reply