ইউরোপা লিগের ফাইনালে আর্সেনাল-চেলসি

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের মতো ইউরোপা লিগেও অল-ইংল্যান্ড ফাইনাল হতে চলেছে। অর্থাৎ চলতি সপ্তাহে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমি-ফাইনালে স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনাকে হারিয়ে ফাইনালে ওঠেছে লিভারপুল।

অন্যদিকে ডাচ ক্লাব আয়াক্স আমস্টারডামকে হারিয়ে ফাইনালে টটেনহ্যাম হটস্পার। আর ইউরোপা লিগের ফাইনালে জায়গা করে নেয় ইংলিশ দুই ক্লাব চেলসি ও আর্সেনাল। বৃহস্পতিবার (৯ মে) একই সময়ে সেমি-ফাইনালের দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে নেমেছিল এই দুই দল। ঘরের মাঠে চেলসি এবং প্রতিপক্ষের মাঠে আর্সেনাল জয় পায়।

স্প্যানিশ ক্লাব ভ্যালেন্সিয়ার মাঠ মেস্তায়া স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় লেগে ৪-২ গোলের জয় পায় আর্সেনাল। প্রথম পর্বে ঘরের মাঠ এমিরেটস স্টেডিয়ামে ভ্যালেন্সিয়াকে ৩-১ গোলে হারিয়েছিল গানাররা। দুই লেগ মিলিয়ে ৭-৩ ব্যবধানে এগিয়ে ফাইনালে পৌঁছে যায় উনাই এমেরির দল।

এ দিকে আরেক ইংলিশ পাওয়ারহাউজ চেলসি নিজেদের মাঠ স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে লড়াইয়ে নেমেছিল জার্মান ক্লাব এইনট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্টের বিপক্ষে। যেখানে ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়। প্রথম লেগেও একই ব্যবধানে সমাপ্তি হয়েছিল ম্যাচটি। দুই লেগ মিলিয়ে ম্যাচের ফলাফল ২-২ হলে ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে; এই সময়ে গোল না হওয়াতে শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে ম্যাচের ফলাফল নির্ধারণ করা হয়। তাতে ৪-৩ ব্যবধানে জয় পায় চেলসি।

ভ্যালেন্সিয়া নিজেদের মাঠে শুরুতেই (১১তম মিনিট) এগিয়ে গেলে কিছুটা চাপে পড়ে আর্সেনাল। দূর পাল্লার শট কেভিন গামেইরো কাছে আসলে গোল পোস্ট খালি পেয়ে সহজেই বল জালে জড়ান এই ফ্রান্স তারকা।

তবে সমতায় ফিরতে বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি গানারদের। ম্যাচের ১৫তম মিনিটে দলকে সমতা ফেরান অবামেয়াং। সতীর্থরা হেড করে বল পাঠালে ডি-বক্সে দাঁড়িয়ে থাকা অবামেয়াং বলটি বুক দিয়ে থামিয়ে জোরালো শটে পোস্ট ঘেঁষে জালে জড়ান।

দুদলের মধ্যে ম্যাচের উত্তেজনা বাড়লেও প্রথমার্ধে ব্যবধান বাড়েনি। তবে দ্বিতীয়ার্ধে শুরু থেকেই আক্রমণের ধার বাড়ায় আর্সেনাল। ম্যাচের ৫০তম মিনিটে আর্সেনালের ব্যবধান বাড়ায় আলেকজান্দ্রে লাকাজেত। বাঁ দিক থেকে লুকাস তররেইরার পাস ডি-বক্সে পেয়ে একজনকে কাটিয়ে নিচু শটে বল জালে পাঠান ফরাসি ফরোয়ার্ড লাকাজেত।

তবে ম্যাচের ৫৮তম মিনিটে ভ্যালেন্সিয়া গোল পেলে ভেঙে যাওয়া স্বপ্ন নতুন করে জেগে ওঠে। কিন্তু তাতে কী আর কাজ হয়; ম্যাচের ৬৯তম মিনিটে ম্যাচের তৃতীয় আর নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন অবামেয়াং। এই গোলের মধ্যে দিয়েই ফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করে ফেলে আর্সেনাল। আর ৮৮তম নিজের হ্যাটট্রিক পূরণ করেন অবামেয়াং।

ওপর ম্যাচে ঘরের মাঠে প্রতিপক্ষের রক্ষণে চাপ রেখেই শুরু করে চেলসি। ম্যাচের প্রথমার্ধে ব্লুজরা গোলের দেখা পেলেও গোল পায়নি এইনট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্ট। ম্যাচের ২৮তম মিনিটে এডেন হ্যাজার্ডের পাস থেকে গোল পোস্টের বা দিক থেকে দুর্দান্ত এক শটে গোলটি করেন ইংলিশ তারকা লফটাসচিকে।






সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে প্রথম শিরোপা বাংলাদেশের
  • এবার বিশ্বকাপের সম্প্রচারে থাকছে ৩২টি ক্যামেরা
  • আয়ারল্যান্ডকে উড়িয়ে দিলো মাশরাফিরা
  • আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ
  • উইন্ডিজকে উড়িয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ
  • ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েই ফাইনালে বাংলাদেশ
  • শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে চতুর্থ শিরোপার স্বাদ পেল মুম্বাই
  • লা লিগায় যুক্ত হচ্ছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া
  • Leave a Reply