পুরান ঢাকার রাসায়নিক কারখানা না সরা দুঃখজনক: প্রধানমন্ত্রী

সরকারের উদ্যোগের পরও ব্যবসায়ীদের পুরান ঢাকা থেকে রাসায়নিক কারখানা সরিয়ে নিতে রাজি না হওয়ার ব্যাপারটি দুঃখজনক বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দগ্ধ ব্যক্তিদের দেখতে যান প্রধানমন্ত্রী। পরে বিষয়টি নিয়ে সাংবাদিকদের কাছে ওই মন্তব্য করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, নিমতলীতে অগ্নিকাণ্ডে প্রাণহানির ঘটনার পরে রাসায়নিকের গোডাউন সরানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। কেরানীগঞ্জে তাদের জন্য জায়গাও দেওয়া হয়েছিল।

তিনি বলেন, কিন্তু ব্যবসায়ীরা পুরান ঢাকা থেকে সরতে রাজি হননি। ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। নিহতদের পরিবারের প্রতি আমি সহমর্মিতা জানাই। এজন্য জাতীয় শোক পালন করা হবে।

গত বুধবার পুরান ঢাকার চকবাজারের চুড়িহাট্টাতে ভয়বাহ এক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত ৬৭ জনের প্রাণহানি হয়। রাসায়নিক কারখানার কারণে ওই এলাকায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে বলে প্রশ্ন উঠেছে।

এর আগে ২০১০ সালেও প্রায় একই ঘটনা ঘটেছিল পুরান ঢাকার নিমতলীতে। অগ্নিকাণ্ডে সে সময় ১২৪ জনের প্রাণহানি হয়। এরপর ওই এলাকা থেকে রাসায়নিকের কারখানা সরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ নেয় সরকার। তবে তা বাস্তবায়ন করা যায়নি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, চকবাজারের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে। ঘটনা জানার সঙ্গে সঙ্গে উদ্ধার অভিযান শুরু করা হয়েছিল। কিন্তু পানির সংকটে পানি পেতে অসুবিধা হয়েছে।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহেদ মালিক, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন, স্থানীয় সাংসদ হাজী সেলিম প্রমুখ।






সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • নড়াইলে স্বামী পরিত্যক্ত নারীর সঙ্গে পরকীয়া করতে এসে লাশ হলো ব্যবসায়ী
  • দ্বিতীয় মেঘনা, গোমতী সেতুর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
  • জাতীয় কবি নজরুল ইসলামের ১২০তম জন্মবার্ষিকী আজ
  • ‘দুর্ঘটনা-যানজট রাতারাতি সমাধান করা সম্ভব নয়’
  • ধানের দাম : সংকট অনুমানে ব্যর্থ হয়েছে সরকার?
  • কমলাপুর স্টেশনে টিকিটের সার্ভাররুমে দুদকের অভিযান
  • কাউন্টারে গিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট কাটলেন রেলমন্ত্রী
  • ৮০ বছরের মধ্যে ডুবে যেতে পারে বাংলাদেশের
  • Leave a Reply