নড়াইলের সনাতন ধর্মাবলম্বীদের খেজুর সন্ন্যাসী পূজা


উজ্জ্বল রায়, নড়াইল প্রতিনিধি :: উৎসবমুখর পরিবেশ ও ভিন্নধর্মী আমেজের মধ্য দিয়ে নড়াইলের সনাতন ধর্মাবলম্বীদের খেজুর সন্ন্যাসী পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নড়াইলের বিভিন্ন গ্রামসহ এলাকায় ‘খেজুরের কাঁদি’ পাড়ার এই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। সন্ন্যাসীরা তন্ত্র-মন্ত্র ও বন্দনার মাধ্যমে খালি পায়ে খেজুর গাছের চূড়ায় উঠে অক্ষত অবস্থায় খেজুর নিয়ে নিচে নেমে আসেন। তন্ত্র-মন্ত্রের কারণে কাঁটা ফোটে না এমনই বিশ্বাস তাদের।গ্রাম বাংলার এই খেজুর সন্ন্যাসী পূজা ঘিরে এ এলাকার সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহের আমেজ সৃষ্টি হয়।

নড়াইলের বিভিন গ্রামের সন্ন্যাসীরা, নড়াইল জেলা অনলাইন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি উজ্জ্বল রায়কে, জানান, সনাতন ধর্মাবলম্বীরা প্রতিবছরের চৈত্র মাসের শেষ দিন বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এ পূজা-অর্চনা করে থাকেন। একটি খেজুর গাছকে ঘিরে এ পূজা অনুষ্ঠিত হয়। শুরুতে একটি খেজুর গাছের চারিদিকে ১০/১২ জন সন্ন্যাসী ঢাক-ঢোলের তালে তালে ঘুরতে থাকেন।

তবে প্রতিবছরের ন্যায় এবার আমাদের এলাকায় খেজুর সন্ন্যাসীর সংখ্যা বেশি। ৩০ জন সন্ন্যাসী এবার এই পূজায় অংশগ্রহন করবে। তারা পড়তে থাকেন বিভিন্ন মন্ত্র-তন্ত্র। ঘুরতে ঘুরতে এক সময় দ্রুত গতিতে খেজুর গাছ বেয়ে ওপরে উঠতে শুরু করেন। একটি খেজুরগাছে অন্তত ৫/৬ জন সন্ন্যাসী খেজুরের কাঁদি পাড়তে গাছে ওঠেন। পুণ্যের আশায় হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন এই খেজুর সন্ন্যাসী পূজা করে থাকেন। এই খেজুর খেলেও পুণ্য হয়। সেই আশায় গাছ থেকে খেজুর পাড়ার পর কাঁচা খেজুর অনেকে খেয়ে থাকেন। অনেকে আবার বাড়িতে নিয়ে ঘরে রেখে দেন।

খেজুর সন্ন্যাসী পূজা ঘিরে পরের দিন সকাল থেকে মেলার আয়োজন করা হয়। মেলা শেষে এই উৎসবের সমাপ্তি ঘটবে।






সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • নবীগণ জীবিত না মৃত?
  • কাতারে বাংলাদেশি হাফেজদের কৃতিত্বপূর্ণ সাফল্য
  • রাসূল (সা.) এর প্রখর মেধার কয়েকটি চিত্র
  • বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব ১০ জানুয়ারি
  • বিশ্বের সবচেয়ে ছোট মসজিদের স্বীকৃতি পাচ্ছে জিন মসজিদ
  • সন্তান সন্ততিকে অভাব অনটনে রেখে তাবলীগে বের হওয়া যাবে কী?
  • ঘুষের টাকা এতিমদের পেছনে ব্যয় করা যাবে কি?
  • ইসলামে প্রতিবন্ধীদের অধিকার
  • Leave a Reply