মার্চে পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলবেন ওয়ার্নার-স্মিথ!

ক্রীড়া ডেস্ক : দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্টে বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগে এক বছরের নিষেধাজ্ঞার মধ্যে আছেন অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নার ও স্টিভেন স্মিথ। তাদের নিষেধাজ্ঞা শেষ হবে ২৯ মার্চ।

তাদের নিষেধাজ্ঞা শেষ হতে না হতেই জাতীয় দলে জায়গা দেওয়া হবে। তবে তাদের ফিটনেস নিয়ে শঙ্কা করা হচ্ছে। কারণ, স্মিথ ও ওয়ার্নার দুজনেই ইনজুরিতে আছেন। বিপিএলে খেলতে এসে প্রথমে স্মিথ ও পরে ওয়ার্নার দেশে ফিরে যান। তারা দুজনই কনুইয়ের সমস্যায় ভুগছেন। তবে ওয়ার্নার ২৯ মার্চের আগেই ইনজুরি থেকে পুরোপুরি সেরে উঠবেন। তবে স্মিথের ক্ষেত্রে আরো কিছুদিন সময় লাগতে পারে। কারণ, তার কনুইতে অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। এখনো তার হাতে ব্যান্ডেজ রয়েছে। সেটা চলতি মাসের শেষে খোলা হবে। ব্যান্ডেজ খোলার পর সাড়ে তিন সপ্তাহ সময় লাগবে পুরোপুরি ফিট হতে।

তবে অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার মনে করছেন বিশ্বকাপের আগে ওয়ার্নার ও স্মিথকে পর্যাপ্ত আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার সুযোগ দিতে হবে এবং তারা সেই সুযোগ পাবেনও।মার্চ মাসের ২২ থেকে ৩১ তারিখ পর্যন্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাকিস্তানের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে খেলবে অস্ট্রেলিয়া। এই সিরিজের শেষ দুটিতে (২৯ ও ৩১ মার্চ) খেলতে পারেন ওয়ার্নার ও স্মিথ।

কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার বলেছেন, ‘আসলে দেখার বিষয় নিষেধাজ্ঞা শেষ করে তারা দুজন কতগুলো আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে পারে। তবে আমি নিশ্চিত তারা দলে সুযোগ পাবে। আমরা তাদের পর্যাপ্ত খেলার সুযোগ দিতে পারব। তাদের খেলা থেকে কেউ আর বিরত রাখতে পারবে না। আমরা তাদের মতো দুজন বড় মাপের খেলোয়াড় নিয়ে কথা বলছি। তারা কেবল দুজন ভালো খেলোয়াড়ই নয়, বড় মাপের খেলোয়াড় এবং সেটা কাগজে-কলমে। তাদের বিশ্বকাপের দলে না রাখাটা আমার মনে হয় পাগলামি হবে।’

‘তবে প্রথমে আমাদের দেখতে হবে যে তাদের ইনজুরির সমস্যার কী অবস্থা। আশা করছি দলে ফেরার পর তারা আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবে। তাদের ইনজুরির অবস্থা দেখে ম্যানেজমেন্ট সিদ্ধান্ত নিবে। এখন আমাদের অপেক্ষা করতে হবে শেষ পর্যন্ত কী হয় সেটা দেখতে।’ যোগ করেন তিনি।

স্মিথের হাতের ব্যান্ডেজ খোলার পরও খেলার জন্য ফিট হতে সাড়ে তিন সপ্তাহ সময় লাগবে। সেক্ষেত্রে ২৪ মার্চের আগে তিনি ফিট হবেন না। এ বিষয়ে স্মিথের ম্যানেজার ওয়ারেন ক্রেইগ বলেন, ‘আসলে তার ব্যান্ডেজ না খোলা পর্যন্ত নির্দিষ্ট করে কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে সাধারণ দৃষ্টিতে ব্যান্ডেজ খোলার সাড়ে তিন সপ্তাহের মধ্যে তিনি খেলার জন্য ফিট হবেন। সেক্ষেত্রে স্মিথ আইপিএলে খেলতে পারেন। এরপর বিশ্বকাপে খেলবেন। খেলবেন অ্যাশেজে।’

তবে স্মিথ যদি আইপিএল না খেলে জাতীয় দলের হয়ে খেলতে চান এবং ফিট থাকেন তাহলে ২৯ মার্চ সিরিজের চতুথ ও ৩১ মার্চ শেষ ওয়ানডেতে খেলতে পারবেন। এরপর বিশ্বকাপের আগে খেলতে পারবেন দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ।

বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়া তাদের প্রথম ম্যাচে ১ জুন আফগানিস্তানের মুখোমুখি হবে। মে মাসের শুরুতে অস্ট্রেলিয়া তাদের বিশ্বকাপ দলের অনুশীলন ক্যাম্প শুরু করবে। এই অনুশীলন ক্যাম্পের অংশ হিসেবে তারা নিউজিল্যান্ডের খেলোয়াড়দের বিপক্ষে ম্যাচ খেলবে। অস্ট্রেলিয়া তাদের অনুশীলন ক্যাম্পের আগে বিশ্বকাপের স্কোয়াডে থাকা সকল খেলোয়াড়কে ডেকে পাঠাবে (আইপিএল থেকে)। অন্যদিকে নিউজিল্যান্ড তাদের বিশ্বকাপের স্কোয়াডে থাকা খেলোয়াড়দের আইপিএল থেকে ডাকবে না। যারা দেশে থাকবে তাদের নিয়েই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলবে। নিউজিল্যান্ডে খেলে অস্ট্রেলিয়া দল বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে ইংল্যান্ড যাবে।

পাকিস্তান-অস্ট্রেলিয়া ওয়ানডে সিরিজের সূচি :
২২ মার্চ-প্রথম ওয়ানডে-শারজাহ
২৪ মার্চ-দ্বিতীয় ওয়ানডে-শারজাহ
২৭ মার্চ-তৃতীয় ওয়ানডে-শারজাহ
২৯ মার্চ-চতুর্থ ওয়ানডে-দুবাই
৩১ মার্চ-পঞ্চম ওয়ানডে-দুবাই।






সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • মেসির জোড়া গোলে সেমিফাইনালে বার্সেলোনা
  • মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে খেলাধুলার বিকল্প নেই
  • ২০১৯ বিশ্বকাপের জন্য বাংলাদেশের দল ঘোষণা
  • কোহলিকে ১২ লাখ ‍রুপি জরিমানা
  • ধাওয়ানের ব্যাটিং তাণ্ডবে দিল্লির জয়
  • রেকর্ড গড়ার ম্যাচে জরিমানা গুনলেন ধোনি
  • রোনালদোর গোলে জুভেন্টাসের স্বস্তির ড্র
  • সেমির পথে এগিয়ে গেল লিভারপুল
  • Leave a Reply