আশাশুনির ৮৫ কেন্দ্রে নিরপেক্ষ ভোট গ্রহনের প্রস্তুতি সম্পন্ন

চেয়ারম্যান প্রার্থী-২, ভাইস চেয়ারম্যান ৭ ও মহিলা ২ জন



জি এম মুজিবুর রহমান, আশাশুনি :: উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আশাশুনি উপজেলার সকল কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম পৌছে গেছে। র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশসহ আইন শৃংখলা রক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত কর্মকর্তা ও ফোর্স উপজেলায় টহল অব্যাহত রেখেছেন।

চেয়ারম্যান পদে ২ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৭ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মাঠে রয়েছেন। উপজেলার সার্বিক আইন শৃংখলা পরিস্থিতি কিছু কিছু এলাকা ব্যতীত অনেক ভাল বলে জানাগেছে।

উপজেলার ১১ ইউনিয়নে ২ লক্ষ ১২ হাজার ৫৯১ জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। যার মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লক্ষ ৭ হাজার ৪৬১ জন ও মহিলা ভোটার রয়েছেন ১ লক্ষ ৫ হাজার ১৩০ জন। ১১ ইউনিয়নে ভোট কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে ৮৫টি। ৮৫ কেন্দ্রে ৫৩৩টি স্থায়ী ও ৪৫টি অস্থায়ী বুথ করা হয়েছে। এসব কেন্দ্রে দায়িত্ব পালনের জন্য ৮৯ জন প্রিজাইডিং অফিসার ৬০৭ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ১ হাজার ২১৩ জন পোলিং অফিসার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। আইন শৃংখলা রক্ষায় ২০০ পুলিশ ও ১০২০ জন আনসার নিয়োজিত রয়েছে।

এছাড়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে র‌্যাব, বিজিবি সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করছেন। শনিবার সকাল থেকে উপজেলার সকল ভোট কেন্দ্রে দায়িত্বরতদের মাধ্যমে ভোট গ্রহনের জন্য প্রয়োজনীয় সকল প্রকার সরঞ্জামাদি কেন্দ্রে প্রেরণের ব্যবস্থা নেওয়া হয়। সন্ধ্যার মধ্যেই সকল কেন্দ্রে সরঞ্জাম পৌছে গেছে। নির্বাচন কমিশন, প্রশাসন ও আইন শৃংখলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও নির্দেশনা মেনে তারা দায়িত্ব পালনে অঙ্গীকারাবদ্ধ হয়ে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌছে গেছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মীর আলিফ রেজা বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে সকল প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। শান্তিপূর্ণ ভাবে কেন্দ্রে কেন্দ্রে প্রয়োজনীয় সামগ্রী পৌছে গেছে। সকল স্তরের মানুষ ও ভোটারদেরকে তিনি নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে ভোট প্রদানের জন্য আহবান জানান।

পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) বিপ্লব কুমার দেবনাথ বলেন, নিñিদ্র নিরাপত্তা ও আনন্দমুখর পরিবেশে ভোট অনুষ্ঠানের জন্য পুলিশ প্রশাসন বদ্ধপরিকর। জেলা পুলিশ সুপারের নিদেশে পুলিশ প্রশাসন কঠোর ভাবে দায়িত্ব পালন করবে। কোন প্রকার অনিয়ম হতে দেওয়া হবেনা। কেন্দ্র দখল ও প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করা হলে কেউ প্রাণ নিয়ে বাড়ি ফিরতে পারবেনা।

নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারীরা হলেন, চেয়ারম্যান ঃ নৌকা প্রতীকের প্রার্থী উপজেলা আ’লীগ সভাপতি এ বি এম মোস্তাকিম ও আনারস প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. শহিদুল ইসলাম পিন্টু। ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) ঃ উপজেলা কৃষকলীগ সভাপতি স ম সেলিম রেজা সেলিম (মাইক), উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি এস এম সাহেব আলী (চশমা), উপজেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি জিএম আক্তারুজ্জামান (উড়ো জাহাজ), সাংবাদিক অসীম বরণ চক্রবর্তী (টিউবওয়েল), উপজেলা কৃষকলীগ সাধারণ সম্পাদক মতিলাল সরকার (তালা), ব্যবসায়ী এমডি ফিরোজ আহম্মেদ (টিয়াপাখি প্রতীক) ও এক্স আর্মি আনিছুর রহমান (বই)।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ঃ মহিলা আওয়ামীলীগ কুল্যা ইউনিয়ন সভাপতি হেনা গাজী (ফুটবল) ও যুব মহিলালীগ বুধহাটা ইউনিয়ন সেক্রেটারী মোসলেমা খাতুন মিলি (কলস প্রতীক)।






সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • আশাশুনিতে কৃষি কর্মকর্তাদের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত
  • বড়দলে রাস্তার কাজ পরিদর্শনে ইউএনও
  • বুধহাটায় ঈদগাহ ও খেলার মাঠে ভবন নির্মান বন্দের দাবীতে মানববন্ধন
  • আশাশুনিতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০১৯ উদ্বোধন
  • আশাশুনিতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সাংবাদিক সম্মেলন
  • আশাশুনির দূর্গাপুর সরঃ প্রাথঃ বিদ্যালয় পরিদর্শনে ইউএনও
  • আশাশুনিতে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসে র‌্যালী ও আলোচনা সভা
  • আশাশুনিতে ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ
  • Leave a Reply