নলতা শরীফে খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা (র.) বার্ষিক ওরছ সম্পন্ন

akhari-monazat-17

মনিরুজ্জামান মহসিন :: বিশ্ব উম্মাহ, দেশ ও জাতির সুখ, শান্তি এবং সমৃদ্ধি কামনা করে আখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে অবিভক্ত বাংলা ও আসামের শিক্ষা বিভাগের সহকারী পরিচালক, বিশিষ্টবিদ, শিক্ষা ও সমাজ সংস্কারক, সাহিত্যিক, মানবসেবাধর্মী ও আধ্যাত্মবাদী মিশনের প্রবক্তা, “¯্রষ্টার এবাদত ও সৃষ্টের সেবা” এ মহান ব্রতকে সামনে রেখে নলতা কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশনসহ অসংখ্য মিশনের প্রতিষ্ঠাতা, সুফি-সাধক পীরে কামেল সুলতানুল আউলিয়া কুতুবুল আকতাব গওছে জামান আরেফ বিল্লাহ হজরত শাহ্ছুফী আলহাজ্জ খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা (রহ.) এঁর ৫৩ বার্ষিক ওরছ শরীফ।

শেষ দিনে শুক্রবার বাদ ফজর হতে শুরু হয়ে সকাল সাড়ে ৮টায় আখেরী মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

নলতা শরীফ শাহী জামে মসজিদের খতিব আলহাজ্জ মাওলানা মো.আবু সাঈদ রংপুরী আধাঘন্টা ব্যাপি আখেরী মোনাজাত পরিচালনা করেন।

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার নলতা কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ও পাক রওজা শরীফের শ্রদ্ধেয় খাদেম আলহাজ্জ মৌলভী আনছারউদ্দিন আহমদ’র বিশেষ তত্ত্বাবধানে ২৬, ২৭, ২৮ মাঘ ৮, ৯, ১০ ফেব্রুয়ারি তিনদিন ব্যাপি পীর কেবলার ৫৩ তম বার্ষিক ওরছের আখেরী মোনাজাতে কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশনের নির্বাহী কমিটির কর্মকর্তাবৃন্দ, স্থানীয়সহ দেশ-বিদেশ থেকে আগত শাখা মিশন কর্মকর্তা, ভক্তবৃন্দ, পুলিশ প্রশাসন বা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, স্বেচ্ছাসেবকবৃন্দ, সরকারী-বেসরকারী কর্মকর্তাবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ তথা বিভিন্ন শ্রেণি-পেশা ও বয়সের ধর্মপ্রাণ লক্ষাধিক নারী-পুরুষ, শিশু অংশ নেয়। এ সময় গোটা এলাকা আমিন আমিন ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে ওঠে। সর্বত্র বিরাজ করে ভাবগাম্ভীর্য পরিবেশ। পীর কেবলার মাজার শরীফ ছেড়ে অনেককে দূরের কর্মস্থলে চলে যেতে হবে ভেবে কান্নায় ভেঙে পড়ে।

আখেরী মোনাজাতে নলতা কেন্দ্রীয় আহছানিয়া মিশনের সভাপতি আলহাজ্জ মুহাম্মদ সেলিমউল্লাহ এর সভাপতিত্বে আলোচনা রাখেন ও অংশগ্রহণ করেন স্থানীয় সাতক্ষীরা-৩ আসনের সংসদ সদস্য, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী আলহাজ্জ অধ্যাপক ডা.আ ফ ম রুহুল হক, নলতা পাক রওজা শরীফের শ্রদ্ধেয় খাদেম আলহাজ্জ মৌলভী আনছার উদ্দিন আহমদ, এনবিআর এর সাবেক চেয়ারম্যান ড. আলহাজ্জ মো. আব্দুল মজিদ, আলহাজ চৌধুরী ডা. মঈনউদ্দিন আহমদ (ঢাকা), ড. গোলাম মঈনউদ্দিন (নলতা শরীফ), ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের পরিচালক আলহাজ্জ কাজী রফিকুল আলম, জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন, ভূমি মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মো.আবু মাসুদ,অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ ফারুক আহম¥দ, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুনসুর আহমেদ, আলহাজ্জ ডা. মো. খলিলউল্লাহ, বিশিষ্ট হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মো.শহীদুল আলম, কালিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্জ শেখ ওয়াহেদুজ্জামান,উপজেলা নির্বাহী অফিসার গোলাম মাঈনউদ্দিন হাসান, নলতা কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশনের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্জ মো. আব্দুল মজিদ, যুগ্ম-সম্পাদক আলহাজ্জ মো. সাইদুর রহমান শিক্ষক, সহ-সম্পাদক আলহাজ্জ চৌধুরী আমজাদ হোসেন, মো. মালেকুজ্জামান, কোষাধ্যক্ষ আলহাজ্জ মোহাম্মদ ইউনুছ, কর্মকর্তা আলহাজ্জ ডা. মো. আকবর হোসেন, আলহাজ্জ এএইচ এম মাহফুজুল হক, মো.আবুল ফজল শিক্ষক, আলহাজ্জ মো. এনামুল হক খোকন, মো. শফিকুল আনোয়ার রঞ্জু, আলহাজ্জ ডা. মো. আবুল কাশেম. অধ্যক্ষ মো. রিয়াজুল ইসলাম, মো. শফিকুল হুদা, ডা. মো. নজরুল ইসলাম, মো. আনছার আলী, মো.খায়রুল হাসান, মো.মহসীন আলী হালদার, আলহাজ্জ মো.মুজিবর রহমান, আলহাজ্জ একরামুল রেজা, আলহাজ্জ মো. শফিকুল ইসলাম, আলহাজ্জ মো. আলমগীর হোসেন, মো.আনোয়ারুল হক, আলহাজ্জ মো.রবিউল হকসহ নির্বাহী কমিটির কর্মকর্তা, কালিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) লস্কর জায়াদুল হক প্রমূখ।

আখেরী মোনাজাতের পূর্ব বিভিন্ন পর্বে অংশগ্রহণ করেন হাফেজ মো.হাবিবুর রহমান,মাওলানা ক্বারী আবু মুছা, মো.আব্দুর রহমান, মো.ফিরোজ আলম, মো.আকতার হোসেন বাচ্চু, মো.আনিছুর রহমান ও বি এম নজরুল ইসলাম।

উল্লেখ্য, নলতা কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশন কর্তৃপক্ষের কড়া নজরদারীতে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য পরিবেশে ৩দিন ব্যাপী ৫৩ তম বার্ষিক ওরছ শরীফের সফল পরিসমাপ্তি ঘটলো।

এদিকে বেলা সাড়ে ১০ টা থেকে নলতা শরীফ শাহী জামে মসজিদের দ্বিতীয় তলায় নলতা কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশনের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় নলতা কেন্দ্রীয় আহছানিয়া মিশনের সভাপতি আলহাজ্জ মুহাম্মদ সেলিমউল্লাহ এর সভাপতিত্বে নলতা কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশনের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্জ মো.আব্দুল মজিদ ও যুগ্ম-সম্পাদক আলহাজ্জ মো. সাইদুর রহমান শিক্ষকের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় মিশনের আজীবন ও সাধারণ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।






সঙ্গতিপূর্ণ সংবাদ

  • জুমআর দিন মুসলমানদের জন্য অনেক মর্যাদাবান
  • শ্যামনগরে শ্রী শ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্ররে মহাপ্রয়াণ দবিস পালতি
  • আগামীকাল বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাত
  • বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু
  • ইজতেমার দ্বিতীয় ধাপে অংশ নিচ্ছেন ১৭ জেলার মুসল্লিরা
  • ইবাদতের লক্ষ্য হওয়া উচিত আল্লাহকে সন্তুষ্ট করা
  • ইজতেমায় ৮৯ দেশের ৮ হাজার মুসল্লি