ত্যাগ-ই হোক চলার পথের পাথেয়

img_20151125_225505

ত্যাগের মহিমা নিয়ে আমাদের দুয়ারে কড়া নাড়ছে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা।vহযরত ইব্রাহিম (আঃ) এর আমল থেকে ধারাবাহিক ভাবে চলে আসছে কুরবানীর এ ঈদ। মহান আল্লাহ তায়ালা তার প্রিয় বান্দাহদেরকে নানা ভাবে পরীক্ষা করে থাকেন। সেটা অনেক সময় কষ্ট দিয়ে, ক্ষুধা দিয়ে, যন্ত্রনা দিয়ে, কখনও আবার সম্পদ দিয়ে, সম্মান দিয়ে বা ক্ষমতা দিয়ে। অনেকে এ সকল অবস্থাকে নিজেদের দূর্ভাগ্য বা সৌভাগ্য বলে বিবেচনা করে থাকেন।

আমরা মানুষ পদে পদে ভূল বা পাপ করতে অভ্যস্থ। মনের চাহিদা মেটাতে আমরা কখন কিভাবে যে পাপ কাজ বা অন্যায় করে যাচ্ছি তা নিজেরা অনুমান পর্যন্ত করতে পারি না। তথাপি উহা সদা সর্বদা লিপিবদ্ধ হচ্ছে আমাদের আমল নামায়। যার দায়িত্বে আছেন কেরাবান কাতেবীন নামে দু’জন সম্মানিত ফেরেশতা। তিল পরিমান ভালো বা মন্দ তারা লিখে রাখছেন। যা নিজেদের সামনে উপস্থাপন করা হবে মরনের পরের জীন্দেগীতে, তথা কিয়ামতের দিনে।তখন আমরাই উহা দেখে হতবাক হয়ে যাব, অস্বীকার করে বলবো এ সবই মিথ্যা।আমি এত পাপ বা পূণ্য করি নাই। মুখে অস্বীকার করতে চাইবে বলে আল্লাহ তায়ালা মুখ বন্ধকরে দিবেন, সেদিন কথা বলবে হাত পা সহ বিভিন্ন অঙ্গ প্রতঙ্গ।

মহান আল্লাহ মানুষকে সৃষ্টি করেছেন তার ঈবাদাতের জন্য। ঈবাদাত মানে আল্লাহুর বশ্যতা স্বীকার করে নিয়ে সর্বদা তারই গুনগান করা।কিন্তু সময়ের আবর্তনে, পরিবেশ পরিস্থিতির শিকার হয়ে মানুষ ভুলে যায় আল্লাহকে।চলতে থাকে বিপথে। লোভ লালসা, হিংসা বাসা বাধে মনে, মমতা ভূলে গিয়ে পশুর মত আচরন করতে থাকে সময় অসময়। ফলে অশান্তি আর দুঃচিন্তায় জ্বলতে থাকে সারাক্ষন।যেটা একসময় সমাজ থেকে রাষ্ট্রে আবার রাষ্ট্র থেকে বিশ্বে, এই অশান্তি দাবানলের মত ছড়িয়ে পরে।

আজ পরিবার, সমাজ, দেশ বা বিশ্ব, যেখানেই তাকাই শুধু অশান্তি আর অশান্তি। লোভ আর স্বার্থপরতাই যার সৃষ্টির মূলে।অথচ যদি আমরা লোভটা নিবারন করে ত্যাগ ভালোবাসার ছোয়া দিকে দিকে সম্প্রসারিত করতে পারি তাহলে সুন্দর ও শান্তিপূর্ণ সমাজ গড়ে তুলা সম্ভব হয়।তাই ত্যাগের মহিমা নিয়ে সুন্দর সমাজ ও দেশ গড়তে প্রতিবছর হাতে কলমে শিক্ষা দিতে আমাদের দুয়ারে আসে ঈদ-উল আযহা বা কোরবানীর ঈদ বা ত্যাদের ঈদ।পশু কোরবানী দিয়ে আবার তা গরিবদের মাঝে বিলিয়ে দিয়ে আমরা প্রশান্তি লাভ করি। শুধু ঈদের দিনে এই ত্যাগের মহিমা প্রদর্শন না করে সারা বছর যদি আমরা এই ত্যাগ আর কোরবানী থেকে শিক্ষা নিয়ে সামনে চলি তাহলে শান্তিময় একটি আবাসভূমি গড়ে তোলা সম্ভব। তাই আসুন আজ আমরা আমাদের মনের গহিনে লুকিয়ে থাকা হিঃসা, লোভ আর ক্ষমতার দম্ভকে পদদলিত করে ত্যাগের মহিমায় উজ্জিবিত হয়ে আমাদের জীবন পরিচালনা করি এবং সমতার ভিত্তিতে সমাজ গড়ি।ঈদের এই শিক্ষাকে আমাদের জীবনের সাথে গেথে নিয়ে আগামীর চলার পথকে প্রশস্ত করি এই হোক প্রত্যয়। শুভ হোক ঈদ-উল-আযহা, ঈদ মোবারক।

সাথে সাথে আমাদের সাতক্ষীরা নিউজের সাথে বিভিন্ন ভাবে যারা জড়িত তাদের সকলকে জানাই ঈদ মোবারক।

সম্পাদক-
সাতক্ষীরা নিউজ