মেসি জাদুতে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনা

বার্সেলোনার জার্সি গায়ে এদিন ৭০০তম ম্যাচ খেললেন বার্সেলোনা অধিনায়ক লিওনেল মেসি। আর মাইলফলকের এ ম্যাচে দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়ে স্মরণীয় করে রাখলেন তিনি। একটি গোল করেছেন। করিয়েছেন আরো দুইটি। ফলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে বুরুশিয়া ডর্টমুন্ডকে ৩-১ গোলে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করেছে দলটি।

পাঁচ ম্যাচ শেষে তিনটি জয় ও দুটি ড্রয়ে বার্সেলোনার সংগ্রহ ১১ পয়েন্ট। সমান সংখ্যক ম্যাচে ডর্টমুন্ডের সংগ্রহ ৭ পয়েন্ট। ৭ পয়েন্ট ইন্টার মিলানেরও। এদিন স্লাভিয়া প্রাগকে ৩-১ গোলের ব্যবধানে হারায় ইতালির ক্লাবটি।

ঘরের মাঠে এদিন প্রাধান্য বিস্তার করেই খেলতে থাকে বার্সেলোনা। তবে শুরুতে তেমন কোনো জোরালো আক্রমণ করতে পারেনি বার্সা। তার ওপর ম্যাচের প্রথম মিনিটেই পিছিয়ে পড়তে পারতো দলটি। ইভান রাকিতিচের ভুলে গোল খেতে বসেছিল তারা। তবে গোলরক্ষক মার্ক টের স্টেগেন ও ডিফেন্ডার ক্লেমো লংলের দৃঢ়তায় সে যাত্রা বেঁচে যায় তারা। নিকো শুলজের শট প্রথম দফায় স্টেগেন ফেরানোর পর দ্বিতীয় দফায় আটকে দেন লংলে।

২৫ মিনিটে ইনজুরিতে পড়ে মাঠ ছাড়েন উসমান দেম্বেলে। তার বদলে আতোঁয়ান গ্রিজমান মাঠে নামার পর আক্রমণে যেন প্রাণ পায় বার্সার। চার মিনিট পরই এগিয়ে যায় তারা। মেসির পাস থেকে অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে বল ধরে দারুণ শটে জালে জড়ান উরুগুইয়ান তারকা লুইস সুয়ারেজ। ৩২ মিনিটেও ভালো সুযোগ তাদের। গোল মুখে জটলা থেকে সুয়ারেজের শট ফিরিয়ে দেন এক ডিফেন্ডার।

পরের মিনিটেই ম্যাট হ্যামেলসের ভুলে ব্যবধান আরও বাড়ায় বার্সা। ফাঁকায় বল পেয়ে যান মেসি। সুয়ায়রেজের সঙ্গে দেওয়া নেওয়া করে দারুণ এক কোণাকোণি শটে লক্ষ্যভেদ করেন এ আর্জেন্টাইন তারকা। ৪২ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল করার সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেন মেসি। ফাঁকায় গোলরক্ষককে একা পেয়েও শট নিতে দেরি করে ফেললে সে সুযোগ নষ্ট হয়।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে সুয়ারেজের পাস থেকে ভালো সুযোগ ছিল গ্রিজমানের। তবে কাজে লাগাতে পারেননি এ ফরাসী। বিরতির পর খেলার শুরু ৩০ সেকেন্ডের মধ্যেও একটি সহজ সুযোগ মিস করেন তিনি। মেসির পাস থেকে একেবারে ফাঁকায় বল পেয়ে গিয়েছিলেন গ্রিজমান। কিন্তু তার শট দারুণ দক্ষতায় ফিরিয়ে দেন ডর্টমুন্ড গোলরক্ষক রোমান বুয়ের্কি।

৬১ মিনিটে ব্যবধান কমানোর দারুণ সুযোগ মিস করে ডর্টমুন্ড। ফাঁকায় বল পেয়েও লক্ষ্যভেদ করতে পারেননি রয়েস। অবিশ্বাস্য এক সেভ করেন টের স্টেগেন। পাঁচ মিনিট পর সের্জি রোবার্তোর ক্রস থেকে ভালো হেড নিয়েছিলেন মেসি। কিন্তু অল্পের জন্য লক্ষ্যে থাকেনি। তবে পরের মিনিটেই গোল পায় বার্সা। পাল্টা আক্রমণ থেকে মেসির নিখুঁত পাসে লক্ষ্যভেদ করেন গ্রিজমান। বার্সার জার্সি গায়ে এটাই এ ফরাসী তারকার প্রথম গোল।

৭৫ মিনিটে দুরূহ কোণ থেকে মেসির নেওয়া ফ্রিকিক বারপোস্টে লেগে ফিরে আসে। দুই মিনিট পর ব্যবধান কমায় ডর্টমুন্ড। হুলিয়ান ব্রান্ডের পাস দারুণভাবে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে দূরপাল্লার শটে লক্ষ্যভেদ করেন বদলী খেলোয়াড় জর্ডান সাঞ্চো। ৭৭ মিনিটে ব্যবধান আরো কমাতে পারতো তারা। আবারো অবিশ্বাস্য এক সেভ করে স্টেগেন। সাঞ্চোর বুলেট শট ঝাঁপিয়ে পড়ে ঠেকিয়ে দেন তিনি। যদি তিনি ফিস্ট করার পর বারপোস্টেও লেগেছিল বল।

এরপর শেষ দিকে দুই দলই গোল করার চেষ্টা চালিয়েছিল। তবে আর কোনো গোল না হলে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে বার্সেলানা।






সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • শ্রীলংকাকে হারিয়ে বাংলাদেশের স্বর্ণজয়
  • বিপিএলের টাইটেল স্পন্সর আকাশ
  • চেলসির দলবদলের নিষেধাজ্ঞা কমলো
  • ভূটানকে একাই হারিয়ে দিলেন সৌম্য সরকার
  • ২৪৯ রানের জয়ে যত রেকর্ড বাংলাদেশের
  • চট্টগ্রাম ভক্তদের উদ্দেশ্যে গেইলের ভিডিও বার্তা
  • দশ উইকেটের জয়ে নেপালকে উড়িয়ে দিলো বাংলাদেশ
  • বাংলাদেশকে দ্বিতীয় সোনা এনে দিলেন আল-আমিন
  • Leave a Reply