কাশ্মীরের ওপরে নজর রাখছি -চীনা প্রেসিডেন্ট

সাতক্ষীরা নিউজ ডেস্ক :: বর্তমানে চীন সফরে রয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। আজ শুক্রবার ভারতে আসছেন চীনা প্রেসিডেন্ট। এরকম এক অবস্থায় গত বুধবার জিনপিং জানিয়ে দিলেন, কাশ্মীরের ওপরে নজর রাখছে বেইজিং। পাকিস্তানের প্রকৃত সমস্যাগুলোর সমাধানে সাহায্য করবে চীন।

পাশাপাশি জিনপিং আগেই পাকিস্তানকে জানিয়েছিলেন, ভারতের সঙ্গে যে কোনও সমস্যার সমাধান শান্তিপূর্ণ আলোচানার মাধ্যমেই করতে হবে পাকিস্তানকে। কাশ্মীর নিয়ে আলোচনা করতে এর আগেও চীনে গিয়েছিলেন ইমরান খান। কিন্তু কাশ্মীর নিয়ে ভারতকে যে কিছু বলতে রাজি নয় বেইজিং তা আগেই স্পষ্ট করে দিয়েছে তারা।

চীনের সেনা মুখপাত্রও জানিয়ে দিয়েছেন, আলোচনার মধ্যেই কাশ্মীর সমস্যার সমাধান করতে হবে পাকিস্তানকে। তিনি এক বিবৃতিতেত জানিয়েছেন, কাশ্মীরসহ সব ইস্যু ভারত ও পাকিস্তানকে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করতে হবে। দু’দেশের স্বার্থের জন্য এটাই শান্তির রাস্তা।

এদিকে, জিনপিংয়ের সফরকালে কোনও চুক্তি সাক্ষর হবে না। সফরের আগেই ভারত জানিয়ে দিয়েছে, ইমরান খানের চীন সফরের সঙ্গে কাশ্মীর ইস্যুর কোনও সম্পর্ক নেই। চীনসহ সব দেশকেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে ৩৭০ ধারা বাতিল একান্তই ভারতের বিষয়। এনিয়ে কোনও আলোচনা হবে না।

কাশ্মীর প্রশ্নে পাকিস্তানের অবস্থানকে সমর্থন করে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের দেওয়া বক্তব্যের কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ভারত। কাশ্মীর পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে জানিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে আশ্বস্ত করেছে চীন। এরপরই ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রভীশ কুমার বলেন, কাশ্মীর ইস্যু ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়, এতে অন্য দেশগুলোর নাক গলালে ভাল হয়। দেশটির সম্প্রচারমাধ্যমের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

চীনের প্রেসিডেন্টের ভারত ও নেপাল সফরকে সামনে রেখে সম্প্রতি বেইজিং সফর করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সফরে তিনি বৈঠক করেন চীনা প্রেসিডেন্টের সঙ্গে। গত বুধবার বেইজিংয়ে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে কাশ্মীর সংকট ও চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোর নিয়ে আলোচনা হয়। সে সময় চীনের প্রেসিডেন্ট পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছেন, তিনি কাশ্মীর পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন এবং যে কোনও পরিস্থিতিতে পাকিস্তানকে সমর্থন করবে তার সরকার।

চীনের প্রেসিডেন্টের এমন বক্তব্যের তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে দিল্লি। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রভীশ কুমার বলেন, ‘কাশ্মীর বিষয়ে ভারতের অবস্থান স্পষ্ট এবং অনড় রয়েছে। আমরা আগেই বলেছি যে কাশ্মীর আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। চীনও আমাদের এই অবস্থান ভাল করেই জানে। ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে অন্য কোনও দেশ কথা বলুক এটা আমরা চাই না। তাই অন্য দেশগুলো যদি এর মধ্যে নাক না গলায় তাহলে তাতে সবারই ভাল হবে।’

উল্লেখ্য, ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের মধ্য দিয়ে কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার ও বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয় বিজেপি নেতৃত্বাধীন দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। লাদাখ ও কাশ্মীরকে দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করতে পার্লামেন্টে বিল পাস হয়। এ পদক্ষেপকে কেন্দ্র করে কাশ্মীরজুড়ে মোতায়েন করা হয়েছে বিপুলসংখ্যক অতিরিক্ত সেনা। গ্রেফতার করা হয়েছে সেখানকার শত শত নেতাকর্মীকে। সেখানে উন্নয়নের জন্য এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে এবং এটা দেশটির ‘সম্পূর্ণ অভ্যন্তরীণ বিষয়’ Íভারতের পক্ষ থেকে এমন দাবি করা হলেও পাকিস্তান বলছে, সেখানে কাশ্মীরিদের মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে।

মুক্তি পাচ্ছেন ৩ কাশ্মীরি নেতা

গত ৫ আগস্ট ভারতের জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপ করা হয়। এরপর জম্মু-কাশ্মীরের প্রায় সব রাজনৈতিক নেতাকে গৃহবন্দি করা হয় ।

প্রায় আঙাই মাস পর কাশ্মীরের ৩ নেতা শর্তসাপেক্ষে মুক্তি পেতে যাচ্ছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার তারা মুক্তি পাবেন বলে জম্মু ও কাশ্মীর প্রশাসন জানিয়েছে।

জানা গেছে, যেসব নেতাকে আজ মুক্তি দেওয়া হচ্ছে তারা হলেন-ইয়ার মির, নূর মোহাম্মদ, সোয়াইব লোন। মুক্তি পেয়ে তাঁরা শান্তি ও শৃঙ্খলা ভঙ্গ হয় এমন কোনও কাজ করবেন না বলে একটি মুচলেকা দিতে হবে।

ইয়ার মির হলেন পিডিপি বিধায়ক। রফিবাদ বিধানসভা থেকে তিনি নির্বাচিত হয়েছেন। ন্যাশনাল কন্ফারেন্সের কর্মী হলেন নূর মোহাম্মদ। তাঁর দায়িত্বে রয়েছে শ্রীনগরে বাটমালু এলাকা। কংগ্রেসের টিকিটে উত্তর কাশ্মীর থেকে ভোট লঙাই করেছিলেন সোয়াইব লোন। পরে তিনি দল ছেড়ে দেন। সাজ্জাদ লোন ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত রয়েছে লোনের। এর আগে গত ২১ সেপ্টেম্বর পিপিলস কন্ফারেন্সের নেতা ইমরান আনসারি ও সৈয়দ আখুনকে স্বাস্থ্যের কারণে মুক্তি দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য নেতা ও সাধারণ মানুষ মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত ১০০০ জনেকে আটক করেছে প্রশাসন। এদের মধ্যে রয়েছেন রাজনৈতিক নেতা, স্বাধীনতাকামী নেতা, সমাজকর্মী, আইনজীবী। রয়েছেন ফারুক আবদুল্লাহ, ওমর আবদুল্লাহ, মেহবুবা মুফতি প্রমুখ।

এদিকে, গতকাল বৃহস্পতিবার থেকেই রাজ্যে পর্যটকদের উপত্যকায় যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়। স্কুল-কলেজও খুলছে।






সংযুক্তিমূলক সংবাদ ..

  • উপগ্রহ চিত্রে চীনের বিশাল বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজ তৈরির কর্মযজ্ঞ
  • সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতিতে একমত হয়েছে তুরস্ক: যুক্তরাষ্ট্র
  • সৌদি তেল খনিতে হামলার বদলা : ইরানে গোপন সাইবার আক্রমণ
  • জাপানে টাইফুনে ‍মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৪
  • কুর্দিদের সহযোগিতা বজায় রাখবে যুক্তরাষ্ট্র
  • তুরস্কের অভিযানে সিরিয়ায় নিহত ৫৯৫ কুর্দি গেরিলা
  • জাপানে শক্তিশালী টাইফুনের আঘাতে নিহত ৯
  • ফিলিস্তিনি রাজনৈতিক ব্যবস্থা পুনর্গঠনে ব্যাপকভিত্তিক নির্বাচন প্রয়োজন: হামাস
  • Leave a Reply