পাকিস্তানকে সৌদি বাদশাহ, ‘আমাদের পক্ষে নাকি কাতারের সঙ্গে?

photo-1497442367

সাতক্ষীরা নিউজ ডেস্ক :: কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করায় মধ্যপ্রাচ্যে শুরু হয়েছে নতুন সংকট। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ এর সমাধানে সৌদি আরবে আলোচনায় বসেছেন। কিন্তু শুরুতেই একটা ধাক্কাই খেলেন নওয়াজ।

বৈঠকের শুরুতেই সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ নওয়াজের কাছে জানতে চাইলেন, ‘আপনি আমাদের পক্ষে, নাকি কাতারের সঙ্গে আছেন?’
গত সোমবার জেদ্দায় ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সৌদি বাদশাহ পরিষ্কার করে জানিয়ে দিয়েছেন, পাকিস্তানকে যেকোনো একটি পক্ষ নিতে হবে।

পাকিস্তানের দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের বরাত দিয়ে দি ইকোনমিক টাইমস এ খবর দিয়েছে।

চলতি মাসের শুরুর দিকে কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে সৌদি আরব। পরে একে একে বাহরাইন, আরব আমিরাত, মিসর, লিবিয়া, ইয়েমেন একই পথ অনুসরণ করে। এমনকি দক্ষিণ এশিয়ার মালদ্বীপও যোগ দেয় ওই মিছিলে। এসব দেশের অভিযোগ সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে সম্পর্ক আছে কাতারের।

পাকিস্তানের একজন জ্যেষ্ঠ সরকারি কর্মকর্তা জানান, পাকিস্তান এমন কোনো অবস্থান নেবে না যা মুসলিম বিশ্বকে বিভক্ত করে। তিনি জানান, কাতার প্রশ্নে সৌদি আরবকে ‘শান্ত’ করতে পাকিস্তান কাজ করবে। এ জন্য নওয়াজ শরীফ কুয়েত, কাতার ও তুরস্কে যাবেন।

ওই সফরে নওয়াজ শরীফের সঙ্গে আছেন দেশটির সেনা প্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া। গত সোমবার জেদ্দায় পৌঁছান নওয়াজ শরীফ।

আনুষ্ঠানিক ঘোষণায় জানানো হয়, উপসাগরীয় এলাকায় মুসলিমদের স্বার্থ রক্ষা সম্পর্কিত বিষয়ে সৌদি আরবের সঙ্গে বৈঠক করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী।

সংবাদ সংস্থা সৌদি প্রেস এজেন্সি জানিয়েছে, ‘সাম্প্রতিক আঞ্চলিক উন্নয়ন’ নিয়ে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হয়েছে।

বাদশাহ সালমান পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, ‘চরমপন্থা ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধটা সব মুসলিম উম্মাহর স্বার্থেই।’






সঙ্গতিপূর্ণ আরো খবর

  • যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা অনিবার্য: উত্তর কোরিয়া
  • রাখাইনে এখনো জ্বলছে রোহিঙ্গা গ্রাম: অ্যামনেস্টি
  • মিয়ানমার গণতান্ত্রিক দেশ দাবি সু চির
  • ট্রাম্প আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে নবাগত দুষ্টু ব্যক্তি : ইরানের প্রেসিডেন্ট
  • পাকিস্তানের নতুন নাম দিলেন মোদি
  • রোহিঙ্গাদের জন্য ১৬৩৯ কোটি টাকা সহায়তা প্রয়োজন : জাতিসংঘ
  • মায়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা উচিত: জাতিসংঘ
  • সুচি বালিতে মাথা গুঁজে রেখেছেন: অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল